Saturday, July 13, 2024

গৃহবধুকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের অভিযোগে ৪ জন গ্রেপ্তার

স্টাফ রিপোর্টার: রাজবাড়ীতে সিঁধ কেটে ঘরে প্রবেশের পর মাথার চুল কেটে, গোপানাঙ্গসহ শরীরের বিভিন্নস্থানে গরম খুনতি দিয়ে স্যাকা নিয়ে খাদিজা বেগম (৩৫) নামে এক গৃহবধুকে নিষ্ঠুরভাবে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

মারাত্নক আহত ওই গৃহবধুকে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে রাজবাড়ী সদর উপজেলার মূলঘর ইউনিয়নের পশ্চিম মূলঘর গ্রামে। এ ঘটনায় শুক্রবার রাজবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ ৪ জনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠিয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো, ঢাকা’র সাভার উপজেলার খাগোরিয়া গ্রামের জয়নাল আবেদীনের ছেলে আতাউর রহমান (৪০), আতাউরের বোন ও রাজবাড়ী সদর উপজেলার পশ্চিম মূলঘর গ্রামের ইটালী প্রবাসী হুমায়ন পাটোয়ারীর স্ত্রী আয়শা বেগম (৩৬) এবং আয়শার দুই ছেলে ইমন পাটোয়ারী ও আশরাফুল ইসলাম।

আহত গৃহবধু খাদিজা বেগম জানান, তিন বছর পূর্বে তিনি ঢাকা জেলার সাভার উপজেলার খাগোরিয়া গ্রামের জয়নাল আবেদীনের ছেলে আতাউর রহমানকে কে ডিভোর্স দেন এবং মোবাইল ফোনে রাজবাড়ী সদর উপজেলার পশ্চিম মূলঘর গ্রামের ইটালী প্রবাসী হুমায়ন পাটোয়ারীকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর থেকে তিনি স্বামীর বাড়ীতে বসবাস করছেন এবং স্বামীর বৃদ্ধ বাবা ও মা’র দেখাশোনা করছেন। এতে তার ডিভোর্স দেয়া স্বামী আতাউর রহমান এবং তার বর্তমান স্বামীর প্রথম স্ত্রী আয়শা বেগম ক্ষিপ্ত হয়। যদিও আয়শা বেগম তার স্বামীর বাড়ী ছেড়ে দুই ছেলে নিয়ে বাবার বাড়ী ঢাকা জেলার সাভার উপজেলার খাগোরিয়া গ্রামে বসবাস করে আসছিলো। গত বৃহস্পতিবার রাত ১২টার দিকে একটি প্রাইভেটকারে আসামি চার জন তাদের বাড়ীতে আসে। তিনি তখন ঘুমিয়ে ছিলেন। আসামিরা সুকৌশলে তার বসত ঘরের সিঁধ কাটে এবং ঘরে প্রবেশ করে মুখ চেপে ধরে প্রথমেই তার মাথার চুল কাটে। এরপর পর্যায়ক্রামে গোপনাঙ্গে প্রথমে মরিচের গুড়া দেয় এবং গ্যাসের চুলায় খুনতি গরম করে পুনরায় গোপনাঙ্গসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে হত্যার উদ্দেশ্যে জখম করার পাশাপাশি স্যাকা প্রদান করে। পরে তার চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে আসে এবং গুরুত্ব অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে এনে ভর্তি করে। এ ঘটনায় তিনি বাদী হয়ে ওই চারজনকে আসামি করে রাজবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

এ মামলার তদন্তকারী কর্মকতৃা ও রাজবাড়ী থানার এসআই কামরুল আহমেদ জানান, আসামিদের গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে তিনি জানতে পেরেছেন ইটালী প্রবাসী হুমায়ন পাটোয়ারী স্ত্রী ও দুই ছেলে সাভার থাকে। গ্রামের বাড়ীতে বৃদ্ধ বাবা ও মাকে তারা দেখভাল করে না। যে কারণে তিনি খাদিজাকে মোবাইল ফোনে বিয়ে করে তার বাবা ও মায়ের দেখাশোনার জন্য নিজ বাড়ীতে রাখে।

গ্রেপ্তার হওয়া ইটালী প্রবাসী হুমায়ন পাটোয়ারীর স্ত্রী আয়শা বেগম জানান, খাদিজা তার ভাই আতাউরের স্ত্রী। খাদিজা তার ভাইকে ডিভোর্স দিয়ে উল্টা তার স্বামীকেই বিয়ে করেছে। আর তার স্বামী খাদিজাকে বিয়ে করার পর থেকেই দুই ছেলে ও তার ভরণ পোষন দেয়া বন্ধ করে দিয়েছে। যে কারণে তারা রাজবাড়ীতে এসে এই ঘটনা ঘটিয়েছে। ‘

Rj/shL/

সর্বশেষ পোষ্ট

এই ধরনের আরো সংবাদ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here