Tuesday, April 23, 2024

পাংশায় বাপ-ছেলে’র বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

উজ্জল হোসেন, পাংশা: রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার পাট্টা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রবিউল মাস্টার ও তার ছেলে ইদ্রিস আলীর বিচার দাবিতে ঝাড়ু মিছিল ও মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী। সোমবার(৩০ জানুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে ইউনিয়নের মুছিদাহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনের সড়কে ঘন্টা ব্যপাী মানববন্ধন বিক্ষোভ সমাবেশ করেছেন এলাকাবাসী।

গত ১ জানুয়ারি সন্ধ্যায় মুছিদহ গ্রামের কৃষক মো. মাজেদকে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মারধর করে পা ও মুখের চোয়াল ভেঙ্গে দিয়েছে , এর প্রতিপাদে আজ গ্রামবাসী ঐক্যবন্ধ হয়ে এ শান্তিপূর্ন কর্মসূচী পালন করেছে। মানববন্ধনে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতা, এলাকাবাসী ও নির্যাতিত অসহায় কৃষক মাজেদের পরিবারের সদস্যরা অংশ নেন। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, পাট্টা ইউপির ৭ নং ওয়ার্ডে ইউপি সদস্য ফিরোজ খান, ইউপি আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক রবিউল ইসলাম, নির্যাতিত মাজেদের চাচা আকাম উদ্দিন, স্থানীয় হানিফ আলী খান, হামিদা বেগম, রেহানা বেগম প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, পাট্টা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রবিউল মাস্টার এলাকায় বেশ প্রভাবশালী। তিনি ও তার ছেলেরা এলাকার অসহায় মানুষের ওপর নির্যাতন করেন। স্থানীয় কোনো সালিশ বিচার মানেন না তারা । রবিউল মাস্টার বিগত দিনে বিএনপি করলেও এখন আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশ করে দলের দাপট দেখিয়ে পরিবারের ৪ সদস্যকে সরকারী চাকুরী দিয়েছেন। মানববন্ধনের একটি ব্যানারে দেখাযায় বিএনপির সাবেক এমপি নাসিরুল হক সাবুর সাথে তার একটি হাসউজ্জল ছবি যা স্থানীয়দের মধ্যে ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে।

মানববন্ধনে বক্তরা আরও বলেন রবিউল মাষ্টার কোনদিন আমাদের গ্রামের কারোর কাছেই নৌকায় ভোট চায়নি কোনদিন অথচ সে আওয়ামীলীগ নেতা পরিচয়ে এলাকায় প্রভাব বিস্তার করে চলছে দীর্ঘদিন ধরে। এর কোন প্রতিকার নেই কি! ১ জানুয়ারি সন্ধ্যায় মুছিদহ গ্রামের কৃষক মো. মাজেদ ম-লকে মারধর করে পা ও মুখের চোয়াল ভেঙ্গে দিয়েছেন। ভয়ে মামলা করতে পারছেন না পরিবারটি। এখনও বিভিন্ন ভাবে ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন বলে অভিযোগ নির্যাতিত পরিবারটির। ভুক্তভোগী মাজেদের চিকিৎসার খরচ দেওয়ার কথা থাকলেও কোনো তোয়াক্কা করছেন না। অর্থাভাবে বিনা চিকিৎসায় বাড়িতে পরে আছেন কৃষক মাজেদ। এদিকে এলাকাবাসী নিরহ কৃষক মাজেদের চিকিৎসার উদ্দ্যোগ নিচ্ছেন বলে স্থানীয়রা জানিয়েছে।

সর্বশেষ পোষ্ট

এই ধরনের আরো সংবাদ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here