Saturday, June 15, 2024

পাংশায় সুদের টাকা না দেওয়ায় ভুক্তভোগীকে এলোপাতাড়ি মারপিটের অভিযোগ

উজ্জল হোসেন, পাংশা : পাংশায় সুদের টাকা না দেওয়ায় মোতাহার খা নামের এক ভুক্তভোগীকে মারপিট ও প্রাণ নাশের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। রবিবার (২৬ ফেব্রুয়ারী) বেলা ৩ টার দিকে পাংশা সাদিপ্লাজার আন্ডার গ্রাউন্ড এ মারপিটের ঘটনা ঘটে।

মোতাহার খাঁ সাদিপ্লাজার মায়ের দোয়া গার্মেন্টস এর স্বত্তাধিকারী। সে কালুখালী উপজেলার কালিকাপুর ইউনিয়নের মোকুড়ী গ্রামের মুন্নাফ খার ছেলে। ভুক্তভোগী মোতাহার খাঁ বলেন, আমার ব্যবসা পরিচালনা করার জন্য ৪ মাস আগে পৌর শহর মাগুরাডাঙ্গী গ্রামের মানিক এর কাছ থেকে ৪৫ হাজার টাকা নেয়। বিনিময়ে প্রতিদিন ৮০০ টাকা করে দেওয়ার কথা ছিলা। একই দিন একই গ্রামের শাজাহানের ছেলে হাফিজ এর কাছ থেকে ৩০ হাজার টাকা নেয়। বিনিময়ে প্রতিদিন ৬০০ টাকা করে দেওয়ার কথা ছিল। টাকা নেওয়ার পর ৩ মাস ১০ দিন উক্ত টাকার লাভের টাকা দিয়ে আসছি। গত ২০-২২ দিন লাভের টাকা দিতে না পাড়ায় সাদিপ্লাজার পার্কিং (আন্ডাগ্রাউন্ড) এ ডেকে এনে মারপিট করে পালিয় যায় হাফিজ ও মানিক। কিছুক্ষণ পর মানিক আমার মোবাইল ফোনে কল করে টাকা না দিলে প্রাণে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দেয়।

এ বিষয় উক্ত টাকা মোতাহারের কাছে সুদ হিসেবে দিয়েছেন বলে স্বীকার করেন মানিক ও হাফিজ। তারা বলেন, অল্পকিছু দিন আমাদর লাভের পরিমাণ টাকা দিয়েছিল। কয়েক দিন পর আমাদের লাভের টাকা দেওয়া বন্ধ করে দেয়। আমরা লাভের টাকা সহ মূল টাকা ফেরত চাইলে টাকা না দিয়ে আমাদের ঘুরাতে থাকে মোতাহার। এ বিষয়ে আজ কথা কাটাকাটির জের ধরে তাকে কিলঘুষি মারা হয়। তবে মুঠোফোনে প্রাণ নাশের হুমকির বিষয়টা অস্বীকার করেছেন তারা। মায়ের দোয়া গার্মেন্টসের স্বত্তাধিকারী মোতাহার খাঁকে মারপিট করা হয়েছে বলে জানান, সাদিপ্লাজার আন্ডারগ্রাউন্ডর ম্যানজার আলম। তিনি বলেন, আমার সামনে মোতাহারকে মারপিট করছে। আমি কোনমত ঠেকিয়ে মোতাহারকে বাচানোর জন্য আন্ডাগ্রাউন্ডের একটি দোকানের মধ্যে ঢুকিয়ে তালা মেরে রাখি এবং হাফিজ ও মানিক চলে যাওয়ার পর তালা খুলে মোতাহারকে বের করে দেই।

সর্বশেষ পোষ্ট

এই ধরনের আরো সংবাদ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here