Thursday, April 18, 2024

রাজবাড়ীতে দা দিয়ে মামাতো ভাইকে কুপিয়ে জখম

রাজবাড়ী প্রতিনিধিঃ রাজবাড়ীতে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ঝগড়ার জেরে ফুফাতো ভাইয়ের ছ্যানের কোপে সাইফুল শেখ (৩৫) নামে এক ব্যক্তি গুরুতর আহত হয়েছেন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সোমবার (২৫ মার্চ) সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে সদর উপজেলার শহীদওহাবপুর ইউনিয়নের রূপপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

চ্যান দকা উদ্ধার

আহত সাইফুল রূপপুর গ্রামের মানিক শেখের ছেলে। তিনি পেশায় একজন মাহেন্দ্রচালক। আর অভিযুক্ত জাহিদ মোল্লা (৩০) একই গ্রামের সোনামদ্দি মোল্লার ছেলে। তিনি পেশায় একজন কাঠমিস্ত্রি।

সাইফুলের বাবা মানিক শেখ জানান, জাহিদ মোল্লা তার আপন ছোটবোন নুরজাহানের ছেলে। তাদের বাড়ি পাশাপাশি। জাহিদের বাড়ির ওপর মুরগির খামার রয়েছে। খামারের গন্ধ সাইফুলের বাড়িতে আসা নিয়ে সোমবার সকাল ১১ টার দিকে সাইফুলের স্ত্রী শিউলী ও জাহিদের স্ত্রী শারমিনের ঝগড়া হয়। এসময় সাইফুল ও জাহিদ দুজনই যার যার কাজে ছিলেন। ঝগড়ার এক পর্যায়ে শিউলী ও শারমিন নিজেদের স্বামীকে ফোন করে বাড়ি আসতে বলেন। খবর পেয়ে সাইফুল ও জাহিদ দুজনই বাড়িতে এসে ঝগড়ায় লিপ্ত হন। এসময় জাহিদ তার ঘর থেকে খেজুর গাছ কাটার বড় ছ্যান দা এনে সাইফুলের গলায়, হাতে ও পায়ে কোপ দেন। গুরুতর আহত অবস্থায় সাইফুলকে উদ্ধার করে প্রথমে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে সেখান থেকে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়। ফরিদপুর হাসপাতালে নেয়া হলে সেখান থেকে তাকে ঢামেক হাসপাতালে রেফার করা হয়।

অভিযুক্ত জাহিদের মা নুরজাহান বেগম বলেন, আমার ছেলে কাজে ছিল। ঝগড়ার সময় বউ তাকে ফোন করে বাড়িতে এনেছে। বাড়ি এসে রাগের মাথায় ঘর থেকে ছ্যান বের করে সে সাইফুলকে কোপ দিয়েছে।

সাইফুলের সঙ্গে অ্যাম্বুলেন্সে থাকা সুকচাঁদ মোবাইল ফোনে বলেন, আমরা ঢাকার পথে পদ্মাসেতু পার হচ্ছি। সাইফুলের অবস্থা খুব একটা ভালো নয়। সবাই দোয়া করবেন তার জন্য।

খানখানাপুর পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের সহকারী উপরিদর্শক (এএসআই) আব্দুর রহমান বলেন, ঘটনার সঙ্গে সঙ্গেই অভিযুক্ত জাহিদ ও তার স্ত্রী শারমিন পালিয়েছেন। তবে ঘটনাস্থল থেকে ছ্যানটি উদ্ধার করা হয়েছে। অভিযুক্তদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

সর্বশেষ পোষ্ট

এই ধরনের আরো সংবাদ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here