Monday, February 6, 2023

পরীক্ষায় পাশ করানোর প্রলোভনে অর্থ আদায়ের প্রতিবাদ করায় রাজবাড়ী টিটিসির সিনিয়র ইন্সট্রাক্টর সহকর্মীর হাতে প্রহৃত

নিজস্ব প্রতিনিধি ॥ রাজবাড়ী সদর উপজেলার আলাদিপুর কারীগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (টিটিসি) শিক্ষার্থী ভর্তি করার সুযোগে মোটা অংকের অর্থ আত্নসাৎ ও ড্রাইভিং পরীক্ষায় পাশ করানোর প্রলোভন দেখিয়ে অর্থ আদায় করা হয়। অর্থ আদায়ের প্রতিবাদ করায় কারীগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের সিনিয়র ইন্সট্রাক্টর কাজী মোফিজ উদ্দিন (৫২) কে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারী) দুপুরে রাজবাড়ী সদর থানার এসআই হুমায়ন রেজা সরেজমিন তদন্ত করে উভয়পক্ষের সাথে কথা বলেছেন। রাজবাড়ী কারীগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের সিনিয়র ইন্সট্রাক্টর কাজী মোফিজ উদ্দিন বলেন, কারীগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের (টিটিসি) ইন্সট্রাক্টর নুর ইসলাম সৌরভ (৪৫) দীর্ঘদিন যাবত কারীগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি করার সুযোগে মোটা অংকের টাকা আত্মসাৎ করেন।

এছাড়াও ছাত্র-ছাত্রীর ড্রাইভিং পরীক্ষায় পাশ করানোর প্রলোভন দেখিয়ে মোটা অংকের টাকা আত্মসাৎ করেছে। তিনি বলেন, এ বিষয়ে জানতে পেরে প্রতিবাদ করলে নুর ইসলাম সৌরভ তার উপর রাগান্বিত হয়ে বিভিন্ন ধরনের হুমকি-ধামকি সহ প্রাণ নাশের হুমকি প্রদান করে। এ বিষয় নিয়ে গত ১৬ জানুয়ারী সকাল সাড়ে ১১ টার সময় টিটিসির অফিস কক্ষের মধ্যে বাক বিতন্ড হয়। সৌরভ তাকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করতে শুরু করে। তিনি গালিগালাজ করতে নিষেধ করা মাত্রই তার উপর হামলা করে। তাকে এলোপাথারী কিল, ঘুষি ও লাথি মেরে শরীরের বিভিন্ন স্থানে নিলাফোলা জখমসহ রক্তাক্ত জখম করে। একপর্যায়ে তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে গলা চেপে ধরে শ্বাসরোধ করে। তার শোর- চিৎকারে টিটিসির অন্যান্য শিক্ষক ও ছাত্ররা তাকে উদ্ধার করে। তিনি আরও বলেন, তাকে খুন জখম করতে ব্যর্থ হয়ে বিভিন্ন ধরনের হুমকি ধামকি সহ লোকজন দিয়ে গুম করে দিবে বলে হুমকি প্রদান করে। পরবর্তীতে উপস্থিত অন্যান্য শিক্ষকসহ ছাত্রদের সহায়তায় দ্রুত রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করা হয়। তিনি বলেন, তার ভয়ে বর্তমানে খুবই নিরাপত্তাহীন অবস্থায় চলাফেরা করছি। যেকোন সময়, যেকোন ধরনের ক্ষয়-ক্ষতি করতে পারে বলে আশঙ্কা থাকায় টিটিসির অধ্যক্ষ প্রকৌশলী নুর অতএব আহমেদ স্যারের নিকট ঘটনার বিষয়ে অবহিত করে রাজবাড়ী থানায় ওইদিনই অভিযোগ দায়ের করা হয়।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত কারীগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের (টিটিসি) ইন্সট্রাক্টর নুর ইসলাম সৌরভের মুঠোফোনে বলেন, আমরা বন্ধু মানুষ, আমাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়েছে। আমাদের মিমাংসা হয়েছে। আপনাকে চায়ের দাওয়াত রইল। কারীগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের (টিটিসি) অধ্যক্ষ প্রকৌশলী নুর অতএব আহমেদ বলেন, আমি মুঠোফোনে এ ভাবে কথা বলতে পারবো না। অফিসে আসলে কথা বলবো।

রাজবাড়ী সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) হুমায়ন রেজা বলেন, আজ মঙ্গলবার সরেজমিন তদন্ত করা হয়েছে। উভয়পক্ষের সঙ্গে কথা বলেছি। পরবর্তী আইনি পদক্ষেপ প্রক্রিয়াধীন।

সর্বশেষ পোষ্ট

এই ধরনের আরো সংবাদ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here