Monday, February 6, 2023

সন্তান জন্মের কয়েক ঘন্টা পরেই পরীক্ষা দিলেন মা

নেহাল আহমেদঃ  মঙ্গলবার সকাল ৮.৩০ মিনিটে ফুটফুটে এক ছেলেসন্তানের জন্ম দেয় সে। কিছুক্ষন আগে মেঘলা খাতুন শারিরীকভাবে সুস্থ বোধ করলে এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহন করতে চান। পরে পরীক্ষা পরিচালনা সংশ্লিষ্টদের সাথে যোগাযোগ করে মেঘলা খাতুন যথাসময়ে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন।

মেঘলা খাতুন আলাউদ্দিন আহামেদ ক্যাডেট স্কুল থেকে এস,এস,সি পরিক্ষায় অংশ গ্রহণ করেন, তার পরিক্ষার কেন্দ্র ছিলো কুষ্টিয়া হাইস্কুল। তার বাড়ি কুষ্টিয়ার চড় মিলপাড়ার গড়াই আবাসনে। পরিক্ষার পুর্বে ১০.৩০ মিনিটে এম্বুলেন্সে করে কেন্দ্রে পৌছে দেয় হাসপাতাল কতৃপক্ষ কুষ্টিয়ার পূর্ব মিলপাড়ায় ছেলে সন্তান জন্মের কয়েক ঘণ্টা পর পরীক্ষা কেন্দ্রে গিয়ে পরীক্ষা দিয়ে আলোড়ন সৃষ্টি করেছে এক স্কুল ছাত্রী। ওই ছাত্রীর মানসিক মনোবল নিয়ে ইতোমধ্যে ভূয়সী প্রশংসা করেছেন স্থানীয়রা। তবে স্কুল শিক্ষার্থীর সন্তান প্রসবের ঘটনায় বাল্যবিয়ের বিষয়টি সামনে আসায় কিছুটা বিব্রত অভিভাবকরা। সন্তানটি জন্মগ্রহণ করেছে কুষ্টিয়ার পূর্ব মিলপাড়ার নগর মাতৃসদন হাসলাতালে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, প্রসূতি মেঘলা খাতুনের বিয়ে হয় ২০২১ সালের মার্চ মাসের ১৫ তারিখে। তার স্বামী আলআমিন একটি কারখানায় কাজ করেন। সে এবারের এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। আজ মঙ্গলবারের (২০ সেপ্টেম্বর) আগের পরীক্ষাগুলো ঠিকভাবেই দিয়েছেন।

তবে মঙ্গলবার পরীক্ষা শুরুর কয়েকঘণ্টা আগে, প্রসব বেদনা উঠলে সকাল ৭ টার দিকে কুষ্টিয়ার পূর্ব মিলপাড়ায় অবস্থিত নগর মাতৃসদন হাসলাতালে প্রসুতিকে ভর্তি করা হয়।সকাল ৮.৩০ মিনিটে ফুটফুটে এক ছেলেসন্তানের জন্ম দেয় সে। এর কিছুক্ষন পর মেঘলা খাতুন শারিরীকভাবে সুস্থ বোধ করলে এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহন করতে চান। পরে পরীক্ষা পরিচালনা সংশ্লিষ্টদের সাথে যোগাযোগ করে মেঘলা খাতুন যথাসময়ে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। মেঘলা খাতুন আলাউদ্দিন আহামেদ ক্যাডেট স্কুল থেকে এস,এস,সি পরিক্ষায় অংশ গ্রহণ করেন, তার পরিক্ষার কেন্দ্র ছিলো কুষ্টিয়া হাইস্কুল। তার বাড়ি কুষ্টিয়ার চড় মিলপাড়া। মেঘলা খাতুন বলেন আমি শারীরিক ভাবে সুস্থ থাকলেও এখানকার ডাক্তার ও স্টাফরা আমাকে মানুষিক ভাবে সাহস যুগিয়েছেন, এখানকার সেবার মান অনেক উন্নত তাই আমি আমার নব্য সন্তান রেখে পিছুটান না রেখে পরিক্ষা দিতে গিয়েছি। ডা সুমাইয়া সারমিন বন্যা বলেন সন্তান জন্ম দেওয়ার পর আমরা মেঘলা খাতুনের শারীরিক পরিক্ষা করে তাকে পরিক্ষার হলে পাঠায়।

প্রজেক্ট ম্যানেজার রাহেলা পারভিন বলেন আমি সহ আমাদের সকল স্টাফ আজকে খুবই আনন্দিত কারন একজন পরিক্ষার্থী আমাদের এখানে সুস্থ ভাবে সন্তান জন্ম দিয়ে হলে গেল। আমরা এখানে আমাদের প্রতিটি প্রসুতি মাকে নিবিড় ভাবে যত্নের মাধ্যমে সেবা প্রদান করে থাকি। আমি নবজাত ও তার মা সহ পরিবারের মঙ্গল কামনা করি।

সর্বশেষ পোষ্ট

এই ধরনের আরো সংবাদ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here